সদরসিরাজগঞ্জ

সুস্থতার পর সেই পথশিশুকে তার গন্তব্যে পাঠালো সিরাজগঞ্জ সদর থানা পুলিশ

গন্তব্যহীন যাত্রার পথযাত্রী পথশিশু শাকিব (১২) সিরাজগঞ্জ উল্লাপাড়ায় গত ২৯ মে রাতে ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে গিয়ে মারাত্মকভাবে আহত হয়। পরে এখরব পেয়ে উল্লাপাড়া ফায়ার স্টেশনের ফায়ারম্যান মীর তুহিন উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ শহীদ এম.মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারী বিভাগে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। এ অজ্ঞাত পথশিশুটির পরিচয় জানতে ও সু-চিকিৎসার জন্য সার্বিকভাবে সহযোগিতা করেন, সিরাজগঞ্জ সদর থানার ওসি মো. সিরাজুল ইসলাম।

সিরাজগঞ্জ শহীদ এম. মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের সার্বিক তত্ত্বাবধানে পথশিশু শাকিব (১২) এর সু-চিকিৎসা করা হয় সুস্থতার পর সিরাজগঞ্জ সদর থানা পুলিশের নারী-শিশু বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী ডেস্কের নিবিড় সেবা ও পরিচর্যায় সুস্থ পথশিশু শাকিবকে রাখা হয়। পরে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে শেখ রাসেল শিশু-কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র, বরিশালের উদ্দেশ্যে গতকাল মঙ্গলবার (৪ জুন) দুপুরে সিরাজগঞ্জ সদর থানা পুলিশ একটি টিম স্কটের মাধ্যমে পথ শিশু শাকিবের যাত্রা করে।

উল্লেখ্য, গত ২৯ মে পথশিশুটি ট্রেনের ছাদে চড়ে টঙ্গী থেকে গন্তব্যহীন ঠিকানায় যাওয়ার পথে রাতে উল্লাপাড়া এলাকায় তারের আঘাতে আহত হয়ে নিচে পড়ে যায় এবং অজ্ঞান অবস্থায় রেল লাইনের পাশে পড়ে থাকে। পরে এ খরব পেয়ে উল্লাপাড়া ফায়ার স্টেশনের ফায়ারম্যান মীর তুহিন উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ শহীদ এম.মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারী বিভাগে সু-চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন ।

পথ শিশু শাকিব (১২) এর কাছ থেকে জানা যায় যে, সে টঙ্গী স্টেশনে পথশিশু হিসেবে সেখানেই থাকে। খালা নামক জনৈক ভাঙারীর দোকানদার তাকে দেখে শুনে রাখে। এ ঘটনায় সিরাজগঞ্জ সদর থানা পুলিশ- টঙ্গী পূর্ব থানার মাধ্যমে শিশুটির খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারে যে, পথশিশু মো. শাকিব (১২)তার পিতার নাম- আব্দুল মালেক, মাতার নাম- রুকসানা, মামা জুয়েল, বন্ধু নাহিদ টঙ্গী রেলস্টেশন ভাঙারীর দোকানদার খালার নিকট থাকে। টঙ্গী রেলস্টেশন এলাকার ভাসমান পথশিশু। পিতা-বরিশাল থাকে। মা রুকসানা পাতারহাট বিয়ে করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button