সদরসিরাজগঞ্জ

সিরাজগঞ্জে স্মার্ট ভূমি অফিস বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ভূমি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ

প্রতিদিন প্রতিবেদক : ২০২৬ সাল নাগাদ দেশের ভূমির কোন খতিয়ানের দাগ শেয়ার হবে না, ভূমি নিয়ে কোন মামলা মোকদ্দমা তেমন থাকবে না, সীমানা বিরোধ হবে প্রায় শুন্য, নাগরিকদের খুব প্রয়োজন ছাড়া ভূমি অফিসে যেতে হবে না, এনআইডি দিয়েই পাওয়া যাবে একজন নাগরিকের জমির সকল তথ্য আর জমি ক্রয়ের সাথে সাথেই পাওয়া যাবে ভূমি মালিকানা সনদ বা সিএলও। একই সাথে দেশের যে সব জায়গায় একবার ডিজিটাল জরিপ সম্পন্ন হবে, সেখানে ভবিষ্যতে আর জরিপ করার প্রয়োজন হবে না-এই লক্ষকে সামনে নিয়ে কাজ করছে সরকারের ভূমি মন্ত্রণালয়। এ লক্ষ্যকে সুষ্ঠ  ও সঠিক পথে নাগরিক সেবা প্রদানে ও একই সঙ্গে ২০৪১ সাল নাগাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত স্মার্ট বাংলাদেশ উপযোগী স্মার্ট ভূমি অফিস বির্নিমানে শুক্রবার সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সিরাজগঞ্জে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল জেলার ভূমি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ।

গত ১৮ আগস্ট, শুক্রবার, সকাল ৯টায় সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসনের শহিদ এ. কে. শামসুদ্দীন সম্মেলন কক্ষে ভার্চুয়ালি প্রশিক্ষণের উদ্বোধন করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. খলিলুর রহমান। প্রধান অতিথি তার বক্তবের শুরুতেই শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সেই সঙ্গে ১৫ আগষ্টে শহিদ তার পরিবার  ঘনিষ্টজনদের। প্রারম্ভিক বক্তব্য রাখেন ভূমি সংস্কার বোর্ড এর সদস্য শশাঙ্ক শেখর ভৌমিক, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবির।

প্রশিক্ষণে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন ও ফ্যাসিলেটেটর হিসেবে ভুমিকা রাখেন ভূমি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ড. জাহিদ হোসেন পনির বিপিএএ। এসময় তিনি জানান ভূমি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে দেশব্যাপী প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে সিরাজগঞ্জে অনুষ্ঠিত হলো ৩৮তম জেলায় প্রশিক্ষণ। প্রশিক্ষণে সহ ফ্যাসিলেটর হিসেবে ভুমিকা রাখেন ভূমি মন্ত্রণালয়ের উপসচিব সেলিম আহমেদ। প্রশিক্ষণে সভাপতিত্ব করেন সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসক মীর মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান।

প্রশিক্ষণে  অতিথিগন  অবহিত করেন ইতিমধ্যে দেশের ১ লাখ ৩৮ হাজার ৪১২টি মৌজা ম্যাপ ডিজিটালাইজ করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে অবশিষ্ট মৌজা ম্যাপও ডিজিটিলাইজ করা হবে। গৃহিত পদ্ধতির কারণে মানুষের হয়রানি কমে এসেছে। অন্যদিকে সিষ্টেমগুলোর কারণে সরকারের রাজস্বও বেড়েছে।  ডিজ্টিাল অনলাইন সেবা কার্যক্রমের জন্য ভূমি মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যেই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিও পেয়েছে। অতিথিরা তাদের বক্তব্যে আরও বলেন, এখন আর ভূমি অফিসে গিয়ে নামজারি, ভূমি উন্নয়ন কর এবং খতিয়ান সেবা গ্রহণ করতে হবে না। নাগরিকগন ঘরে বসেই ১৬১২২ নম্বরে কিংবা বিদেশ থেকে +৮৮০৯৬১২৩ ১৬১২২ নম্বরে ফোন করে পেয়ে যাবেন এসব সেবা।

সরকার ও ভূমি মন্ত্রণালয়ের এসব উদ্যোগ গ্রহনের কারণে বিশেষ করে ২০২০ সালে ই-নামজারির কারণে অর্জন করেছে জাতিসংঘ জনসেবা পদক এবং ২০২২ সালে অর্জন করেছে ডাব্লিউএসআইএস ও ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার। এছাড়াও হাতের লেখা খতিয়ান প্রথার এনালগ পদ্ধতি থেকে উত্তরণ ঘটিয়ে ড্রোন দিয়ে ডিজিটিলাজ  জরিপ শুরু হয়েছে।

 প্রশিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন যুগ্ম সচিব ড. জাহিদ হোসেন পনির ও উপসচিব সেলিম আহমেদ ও অনুষ্ঠানে সভাপতি জেলা প্রশাসক মীর মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান।

প্রশিক্ষণে জেলা প্রশাসক তার বক্তব্যে বলেন, লক্ষ্যকে সামনে রেখে সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসন কাজ করছে। এলক্ষে বিদ্যমান জনবল স্বল্পতার সমাধান, দূরবর্তী ভূমি অফিসের নিরাপত্তা বিধানে লোকবল নিয়োগ এর প্রয়োজনীয়তার গুরুত্বপূর্ন বিষয়ও উন্থাপন করেন জেলা প্রশাসক।

প্রশিক্ষণে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন স্মার্ট ভূমি পিডিয়ার কার্যক্রমের নমুনা প্রদর্শন করা হয়। প্রশিক্ষণার্থীদের হাতে কলমে অনলাইন কার্যক্রমের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়।

প্রশিক্ষণে মতামত ব্যক্ত করেন রায়গঞ্জের উপজেলা চেয়ারম্যান ইমন তালুকদার, সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম তালুকদার,দৈনিক সিরাজগঞ্জ প্রতিদিন পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক ইসমাইল হোসেন প্রমুখ।

দিনব্যাপী এই প্রশিক্ষণে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব মো. মোবারক হোসেন, মো. কামরুল হাসান সোহাগ, সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আরমএম শাখা, ভিপি শাখা, স্থানীয় সরকারের নির্বাচিত প্রতিনিধি, বিভিন্ন উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি), জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা ও কর্মচারী, শিক্ষক ও গণমাধ্যম কর্মীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button